অবসরের আগে বিদেশি প্রশিক্ষণ নিয়ে আপত্তি সংসদীয় কমিটির

0
126

অবসরের আগে বিদেশে প্রশিক্ষণে আপত্তি জানিয়েছে সংসদীয় কমিটি। কমিটির সদস্যরা বলেন, দেখা যায় বিদেশ থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে এসে কর্মক্ষেত্রে তা প্রয়োগের আগেই অনেক সরকারি কর্মকর্তা অবসরে চলে যান। এজন্য অবসরে যাওয়ার অন্তত চার বছর আগে সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশে প্রশিক্ষণে পাঠানোর শর্ত যুক্ত করার সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি। বিদেশি প্রশিক্ষণের অভিজ্ঞতা কর্মক্ষেত্রে কাজে লাগানোর জন্য এ বিষয়ে মন্ত্রণালয়কে ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করা হয়।

সংসদ ভবনে বুধবার অনুষ্ঠিত বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এই সুপারিশ করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী। বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী, আশেক উল্লাহ রফিক, সৈয়দা রুবিনা আক্তার বৈঠকে অংশ নেন।

সংসদের গণসংযোগ বিভাগ জানায়, বৈঠকে জানানো হয় হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের প্রাইভেট ও কমার্শিয়াল এয়ারক্রাফটের পার্কিং সুবিধা বাড়ানো, বৈরী আবহাওয়ায় পার্কিং এয়ারক্রাফটগুলোর শেল্টার সুবিধা এবং এয়ারক্রাফটগুলোর রুটিন সার্ভিসিং ও মেরামত কাজের সুবিধা সৃষ্টির জন্য বিমানবন্দরে জেনারেল এভিয়েশন হ্যাঙ্গার এপ্রোন নির্মাণ প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া পাঁচ তারকা হোটেলে গান পরিবেশনকারী শিল্পীরা যাতে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ না হন, সে বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে সুপারিশ করে কমিটি।

কমিটির সভাপতি র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, অনেক সময় দেখা যায় এমন কর্মকর্তারা বিদেশে প্রশিক্ষণের জন্য যাচ্ছেন, যাদের চাকরির মেয়াদ আছে এক বা দেড় বছর। এমন কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ দিয়ে আনা হলে সেই প্রশিক্ষণ খুব একটা কাজে লাগে না। তাই কমিটির সদস্যরা এই সুপারিশ করেছেন, যাতে কর্মকর্তারা প্রশিক্ষণ নেওয়ার পর তা কাজে লাগানোর পর্যাপ্ত সময় পান।

কমিটি সূত্র জানায়, বৈঠকে একজন সদস্য বিদেশে প্রশিক্ষণের বিষয়টি উত্থাপন করে বলেন, মাটি কাটা, পুকুর খনন দেখার মতো বিষয়ে প্রশিক্ষণ নিতেও বিদেশ যাচ্ছেন কর্মকর্তারা। আবার এমন কর্মকর্তারাও সরকারি টাকা খরচ করে প্রশিক্ষণে যাচ্ছেন, যারা কিছুদিন পরই অবসরে যাবেন। ফলে এই প্রশিক্ষণ দেশের কোনো কাজে লাগে না।

Print Friendly, PDF & Email